আধো ঘুম ক্যাস্ট্রোর সঙ্গে

লেখকঃ শাহাদুজ্জামান

প্রকাশকঃ ঐতিহ্য

প্রথম প্রকাশঃ ২০১৪

শাহাদুজ্জামানের সাথে আমার প্রথম পরিচয় ঘটে ‘একজন কমলালেবু’-র মাধ্যমে। তারপর থেকেই তাঁর লেখনী সম্পর্কে আমার আগ্রহ জাগে। খুঁজতে থাকি শাহাদুজ্জামানের লেখা অন্য বই। তখনই এই বইটির উপর আমার চোখ আটকে যায়। বিপ্লবের প্রবাদ পুরুষের সাথে এক বাঙালি যুবকের কাল্পনিক কথোপকথন এই উপন্যাসের মূল উপজীব্য। প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই অর্ডার করে ফেলি এই বইটি আর হাতে আসার দিনই এক বসায় পড়ে ফেলি পুরো বই। লেখক এখানে এক সাধারণ বাঙালি ছেলেকে নিয়ে যান ক্যাস্ট্রোর বসার ঘরে, যেখানে এই মহান বিপ্লবী উষ্ণ অভ্যর্থনায় স্বাগত জানান সেই যুবককে। শুরু হয় তাদের আলাপচারিতা, যেখানে ক্যস্ট্রো একে একে নিজের জীবনের সকল রহস্য তার সামনে উন্মোচন করে দেন। বাঙালি যুবক এখানে পাঠকের প্রতিনিধি, যে ক্যস্ট্রোর গুণমুগ্ধ এবং তার জবানিতে শুনতে চায় তার জীবনের গল্প। পৃথিবীর ভিন্ন ভিন্ন প্রান্তের দুইটি দেশ হওয়া সত্ত্বেও কিউবার সাথে বাংলাদেশের এক অদৃশ্য সম্পর্ক রয়েছে। উভয় দেশই দীর্ঘকাল উপনিবেশিক শাসনে চলেছে, দীর্ঘ সংগ্রামের মাধ্যমে অর্জন করেছে তাদের স্বাধীনতা আর সেই সংগ্রামের কেন্দ্রে রয়েছে এক অবিসংবাদিত নেতা। উপন্যাসের একাধিক জায়গায় দুইজনের মাঝে আলাপের ছলে এই সামঞ্জস্যের কথা বলা হয়েছে।

এই উপন্যাসে ক্যস্ট্রোর জবানিতে আমরা জানতে পারি তার ছেলেবেলার অনুপ্রেরণা হোসে মার্তি, সাইমন বলিভারের কথা। কিভাবে এক সামন্ত পরিবারে জন্ম নিয়েও দারিদ্র্যকে খুব কাছ থেকে তিনি দেখছেন। জানতে পারি তার একাধিক ব্যর্থ বিপ্লবের কথা, কিভাবে শত্রুর হাতে ধরা পরার পর নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা পান পেড্রো সারিয়া নামের এক কৃষ্ণাঙ্গ ল্যাফটেনেন্ট-এর হস্তক্ষেপে। প্রথম ব্যর্থ বিপ্লবের পর কারাগার থেকে বের হয়ে কিভাবে তার সাথে দেখা হয় চে গুয়েভেরার। প্রায় ২৫ মাসের যুদ্ধের পর স্বৈরশাসক বাতিস্তুতার পতন ঘটিয়ে কিভাবে কিউবাকে সবাধীন করেন ক্যস্ট্রো ও তার বিপ্লবীরা। কিন্তু স্বাধীনতা প্রাপ্তির পরে সেই স্বাধীনতা রক্ষা করা ক্যস্ট্রো ও তার বিপ্লবীদের জন্য আরো বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়ায়। কারণ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এত নিকটে থেকেও সমাজতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থা গড়ে তোলার দুঃসাহস দেখায় কিউবা। সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের পরে টিকে থাকা আরো মুশকিল হয়ে পরে কিউবার জন্য। কিন্তু এত প্রতিকূলতা সত্ত্বেও কখনোই ভেঙ্গে পরেননি ক্যাস্ট্রো। ক্যস্ট্রো আর তার কিউবা সকল প্রতিকূলতার বিপক্ষে লড়াই করে যায়। যুক্তরাষ্ট্র তার সরকারকে সরানোর এমনকি তাকে হত্যা করার চেষ্টা করে একাধিকবার, কিন্তু প্রতিবারই ক্যস্ট্রো বেঁচে যান।

২০১৬ সালের ২৫ নভম্বর ক্যস্ট্রো শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন কিন্তু তার সংগ্রামী আদর্শ কিউবা এবং বিশ্বের যেকোনো প্রান্তের সংগ্রামী গোষ্ঠীকে অনুপ্রেরণা জানায় অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাড়ানোর জন্য।

ক্যস্ট্রোর কাল্পনিক জবানিতে লেখক তার পাঠককে একইসাথে ক্যস্ট্রোর বৈচিত্রময় জীবন সম্পর্কে পরিচিত করিয়ে দেন, কিউবার বিপ্লবের নানান ধাপ-প্রতিঘাত সম্পর্কে জানান এবং ক্যস্ট্রোর দর্শনকে আরও স্পষ্টভাবে উপস্থাপন করেন। সাক্ষাৎকারের ছলে এক কিংবদন্তীর জীবনী লিখে শাহাদুজ্জামান আরো একবার দেখিয়েছেন নিজের লেখনীর মুন্সিয়ানা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *