আপনার কি মুড অফ? কিছুই ভালো লাগছে না? জীবনের শত ঝঞ্ঝাটে আপনি বিরক্ত? নিজের জীবনের মনোটোনি কাটানোর উপায় খুজছেন আপনি? জীবনের এই চাপ কমানোর সবথেকে সহজ ফান্ডা তাহলে বাতলে দেই আপনাকে। এখনই গুগল মহাশয়ের সাহায্য নিয়ে খুঁজে বের করুন নব্বই-এর দশকের মার্কিন সিটকম ‘Friends’। আর তারপর ডুব দিন রস, র‍্যাচেল, চ্যান্ডলার, মনিকা, জোয়ি আর ফিবি নামের ছয়জনের জীবনে। আপনাকে গ্যারান্টি দিতে পারি মুহূর্তের মধ্যে আপনি নিজ জীবনের ঝামেলা ভুলে ডুবে যাবেন তাদের জীবনে ঘটতে থাকা নানা হাস্য-রসাত্মক ঘটনায়। 

আমার মত যারা ‘Friends’-এর একনিষ্ঠ ভক্ত, দেখে ফেলেছেন সিরিজটির সব সিজনের সব এপিসোড কয়েকবার করে, তাদেরকে আজ আমাদের প্রিয় এই সিরিজ বিষয়ক কিছু অজানা, অবাক করা ও মজার তথ্য তুলে ধরব। আশা করি আপনাদের মন্দ লাগবে না।

চার জনের কাস্টঃ 

Friends-এর পুরো কাস্ট

প্রথম যখন লেখা হচ্ছিল ‘Friends’-এর চিত্রনাট্য তখন ছয়জনের জায়গায় চারজনকে মূল কাস্ট হিসেবে মনে করা হচ্ছিল। চ্যান্ডলার আর ফিবির চরিত্র দুটিকে পার্শ্ব চরিত্র হিসেবে ভাবা হচ্ছিল। তারপর সিদ্ধান্ত পাল্টে ফেলে সিরিজটির ব্যবস্থাপকেরা। চ্যান্ডলার আর ফিবিকে ছাড়া কেমন হত ‘Friends’, ভাবাও যায় না। 

মনিকা হতে পারতেন র‍্যাচেলঃ

মনিকা গেলার-এর চরিত্রের অভিনেত্রী কোর্টনি কক্সকে প্রথমে প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল র‍্যাচেল চরিত্রে অভিনয় করার। কিন্তু কোর্টনির কাছে মনিকার চরিত্র বেশি পছন্দ হয়ে যাওয়ায় তিনি নিজেই মনিকাকে বেছে নেন আর র‍্যাচেল চরিত্রটি চলে যায় জেনিফার অ্যানিস্টনের কাছে।

এলেন হতে পারতেন ফিবিঃ

এলেন ডিজেনেরাস

ফিবি বুফে চরিত্রে অভিনয় করার জন্য কমেডিয়ান ও বর্তমানের বিখ্যাত টকশো ‘The Ellen DeGeneres Show’-এর হোস্ট এলেন ডিজেনেরাসকে প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল। কিন্তু সেই প্রস্তাবে সাড়া না দেয়ায় সুযোগটি চলে যায় লিসা কুড্রোর কাছে। 

নাম নিয়ে নাটকঃ

‘Friends’ নামটিকে চূড়ান্ত করার আগে বেশ কয়েকটি নামকে সিরিজের জন্য বিবেচনা করা হয়েছিল। প্রথমে সিরিজটির নাম দেয়া হয়েছিল Insomnia Cafe। সেটা পাল্টে রাখা হয় Six of One। সেই নামটিও মনমত না হওয়ায় সিরিজের নতুন নাম রাখা হয় Friends Like Us। তারপর সিরিজটির পাইলট এপিসোড প্রচারের কিছুদিন আগে ‘Friends’ নামটি চূড়ান্ত করা হয়।

ফিবির একসাথে দুইটি সিরিজে উপস্থিতিঃ

ফিবি ও আরসালা রূপে লিসা কুড্রো

ফিবির যমজ বোন আরসালা বুফে-এর কথা আপনাদের মনে আছে নিশ্চয়ই। আরসালা আসলে ‘Mad About You‘ নামের আরেকটি সিরিজে লিসা কুড্রোর অভিনীত একটি চরিত্র। লিসা ‘Friends’-এ অভিনয় শুরু করার পরও ‘Mad About You’-তে আরসালা নামের এক অতিথি চরিত্রে অভিনয় করতে থাকেন। তখন ‘Friends’-এর রাইটাররা আরসালাকে ফিবির যমজ বোন হিসেবে নাটকে উপস্থাপন করে। ‘Mad About You’-এর একটি এপিসোডেও লিসাকে ফিবি হিসেবে দেখা যায়।

মনিকার দুর্ভাগ্যঃ

‘Friends’-এর মূল কাস্টের ছয় জনের মধ্যে পাঁচজন পেয়েছেন এমি অ্যাওয়ার্ডের নমিনেশন। শুধুমাত্র মনিকা চরিত্রে অভিনয় করা কোর্টনি এই সম্মান থেকে বঞ্চিত হয়েছেন।

মনিকা+জোয়ি?:

মনিকা ও জোয়ি

‘Friends’-এর যে রোমান্টিক জুটি সবথেকে বেশি লাইমলাইটের মধ্যে ছিল, সেটি হচ্ছে রস আর র‍্যাচালের জুটি। কিন্তু প্রথমে নীতি-নির্ধারকদের পরিকল্পনা এটা ছিল না। তাদের পরিকল্পনায়, মনিকা আর জোয়িকে প্রথমে প্রধান রোমান্টিক জুটি হিসেবে মনে করছিলেন। কিন্তু পরবর্তীতে সেই সিদ্ধান্ত থেকে তারা পালটে আসেন আর মনিকার সাথে জুটি বাধে চ্যান্ডলারের।

গে চ্যান্ডলার?:

চ্যান্ডলার বিং

চ্যান্ডলার বিং চরিত্রটি প্রথমে এক গে পুরুষ হিসেবে ভাবা হচ্ছিল। এমনকি, লিসা আর কোর্টনিও বলেছেন যে তারা যখন প্রথম ‘Friends’-এর স্ক্রিপটি পড়েন তাদের কাছে চ্যান্ডলারের চরিত্রটি গে বলেই মনে হয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত চ্যান্ডলার চরিত্রের অভিনেতা ম্যাথিও পেরিকে এক হেটেরোসেক্সুয়াল যুবকের চরিত্রেই দেখা যায়।

চীনের ‘Central Perk’:

‘Friends’-এ ছয় বন্ধুদের সবসময় দেখা যেত ‘Central Perk’ নামের এক কাল্পনিক কফিশপে আড্ডা দিতে। ২০১০ সালে চীনের এক ব্যবসায়ী যে কিনা ‘Friends’-এর বিরাট ভক্ত, বেইজিং শহরে সিরিজে দেখানো কফি শপটির এক রেপ্লিকা তৈরি করেন। সেই কফি শপটি এখনো বেইজিং-এ সচল রয়েছে।

গানথার আসল জীবনেও একজন বারিস্তাঃ

‘Friends’ সিরিজের সকলের প্রিয় এক অতিথি চরিত্র হচ্ছে গানথার। ‘Central Perk’-এ বারিস্তা ও ম্যানেজারের চরিত্রে দেখা যায় তাকে। সিরিজের প্রথম থেকেই র‍্যাচেলের উপর তার ক্রাশ থাকে কিন্তু একদম শেষ এপিসোডের আগে কখনোই র‍্যাচেলকে সে তা জানাতে পারে না। অবাক করা ব্যাপার হল যে গানথার চরিত্রের অভিনেতা জেমস মাইকেল অভিনেতা হওয়ার আগে হলিউডের এক কফিশপে বারিস্তা হিসেবেই কাজ করতেন। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *